1. tarekahmed884@gmail.com : AdminLWTarek :
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি? কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করবেন - Learn With Tarek
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি? কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করবেন
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি? কিভাবে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করবেন
আজ আমরা জানব ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের একটা জনপ্রিয় অংশ সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং নিয়ে।
আগে জেনে নেই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি?
সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটের মাধ্যমে কোন পণ্য বা সেবার প্রচার করাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলে। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কে সংক্ষেপে SMM বলা হয়।
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বর্তমান সময়ের অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি প্রচার মাধ্যম। আপনি খুব সহজে আপনার কাস্টমারের কাছে আপনার বিজ্ঞাপনটি প্রচার করতে পারবেন এই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে।
একটা উদাহরণ দেইঃ আপনি যদি লেডিস কসমেটিকস বিক্রি করেন সেক্ষেত্রে আপনার কাস্টমার হতে পারে ১৫-৩৫ বছরের লেডিস, তাহলে তাদের কাছে এ্যাড দেখাতে গেলে যদি টিভি এ্যাড দেন তাহলে খরচ তো হবেই সাথে পুরুষ মহিলা সব বয়সের মানুষ দেখবে। একই এ্যাড যদি আপনি সোশ্যাল মিডিয়াতে দেন তাহলে আপনার টার্গেট অডিয়েন্স সিলেক্ট করতে পারবেন, বয়স, নির্দিষ্টভাবে এরিয়া সিলেক্ট করে প্রকৃত কাস্টমার বেড় করে নিয়ে আসতে পারেন।
এতে পণ্যটি বিক্রিও হল এবং প্রচার ও হল। এজন্য সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর গুরুত্ব অনেক।
নিচে কয়েকটি জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ওয়েবসাইটের নাম বললাম যে সাইটগুলো আমরা অনেকেই জানিঃ
ফেসবুক মার্কেটিংঃ
সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট গুলোর মধ্যে ফেসবুক অন্যতম। ফেসবুকের মাধ্যমে কোন পন্য বা সেবার প্রচার করে দেওয়াকেই ফেসবুক মার্কেটিং বলে। এক কথায় ফেসবুকে যে বিজ্ঞাপন দেয়া হয় তাকেই ফেসবুক মার্কেটিং বলে। যে কোন ধরণের পোস্ট ফেসবুকে টাকার মাধ্যমে দেয়া যায়, যেটা স্পন্সর হিসাবে ফেসবুক ইউজার এর ওয়াল এ শো করে। এ ধরণের বিজ্ঞাপন সাধারণত আপনার ফেসবুক নিউজফিডে বিভিন্ন পন্যের স্পন্সরড পোষ্ট আসে। একটি ফেসবুক পেজের মাধ্যমে পোস্ট অথবা আপনি বিভিন্ন অডিও, ভিডিও, টেক্সট এর মাধ্যমে আপনার প্রচার চালাতে পারেন।
ইউটিউব মার্কেটিংঃ মার্কেটিং এর ক্ষেত্রে ফেসবুক এর পরেই ইউটিউব এর অবস্থান। আপনি যদি কোন প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করেন তাহলে ফেসবুক এ মার্কেটিং হবে আপনার জন্য সব থেকে আদর্শ। আর যদি কসমেটিকস নিয়ে কাজ করেন তাহলে ইউটিউব আপনার প্রথম পছন্দ থাকা উচিত। কেননা এখন মানুষ টেলিভিশনের সামনে বসে যতটা বিউটিফিকেশন নিয়ে দেখা তার থেকে বেশি সময় এখন ইউটিউব দেখে। কসমেটিকস নিয়ে রিভিউ দিলেন সাথে প্রোডাক্টও বিক্রি করলেন। আপনার ওয়েবসাইট যদি হয় শিক্ষা, রিভিউ, টেকনোলজি সংক্রান্ত তাহলে আপনি অবশ্যই ইউটিউব নিয়ে মার্কেটিং করতে পারেন। কেননা শিক্ষার জন্য ইউটিউব এখন সব থেকে বড় প্লাটফর্ম। আর বিনোদনের কথা না ই বললাম।
ইন্সটাগ্রামঃ
ইন্সটাগ্রাম হচ্ছে ফটো শেয়ারিং প্লাটফর্ম। এটিও একটি ফেসবুকের কোম্পানি। টোটাল ইন্টারনেট ব্যবহারকারির ২০% মানুষ ইন্সটাগ্রাম ব্যবহার করে থাকে। ফেসবুকে কোন পণ্য বা সার্ভিস বিজ্ঞাপন দেওয়ার সময় সেটিং থেকে ইন্সটাগ্রাম সিলেক্ট করে দিলে অটোমেটিক বিজ্ঞাপনটি ইন্সটাগ্রামেও ভিউ হবে। আপনি ইন্সটাগ্রাম মার্কেটিং করলে ২০% মানুষ আপনার এই বিজ্ঞাপনটি সম্পর্কে জানতে পারবে।
লিঙ্কডইন মার্কেটিংঃ বর্তমান সময় লিঙ্কডইন মার্কেটিং বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। লিঙ্কডইন মার্কেটিং এখন অনেক কার্যকরী এবং ফলপ্রসূ। লিঙ্কডইন এর মাধ্যমে আপনি চাইলে অনেক ট্রাফিক আপনার ওয়েবসাইট এ আনতে পারবেন এবং খুব ভাল একটা ইমেজ তৈরি করে ফেলতে পারেন। আপনার ওয়েবসাইট সব গুলা পেজ বা সব গুলো প্রোডাক্ট আপনি লিঙ্কডইন এ নিয়মিত শেয়ার করলে খুব ভাল ফিডব্যাক পাবেন।